yellow rose
তোর দেওয়া হলুদ গোলাপ টাকে নষ্ট হয়ে যেতে দেই নি। সাদা টিস্যু করে বিবর্ণ প্রায় পাপড়ি গুলো স্টেপলার মেরে  একটা মোটা বই এই ভাজে রেখে দিয়েছি। টিস্যুর উপর তোর নাম আর তারিখ দেওয়া। যাতে ওটা দেখতে না পাই।
সেই ব্রিজের পাশে বটতলা,কিংবা হাটতে হাটতে তিন মাইল। রাস্তার পাশের চায়ের টোং এর ধুঁয়া ওঠা চায়ের ভাড়। আবার কখনও বা অজানা প্রতিক্ষায় বসে থাকা ভাঙাচোরা স্টেশন চত্তরে।সেখানে বসেই দাবার প্রতিযোগিতা বা বিকেল শেষে নিরস মুখে ঘরে ফেরা। কিংবা শীতকালে জবুথবু হয়ে আইসক্রিম খাওয়া।আবার কখনও বা চায়ের দাম দেওয়া নিয়ে মারামারি করে দুজনেই দ্বিগুণ দাম দিয়ে চলে আসা। তোর সাথে বেট লেগে ফুসকায় তিনগুণ ঝাল খাওয়া, সেই সাথে চোখে ছোট খাটো জলপ্রপাত বয়ে যাওয়া। এসবের কিছুই যাতে মনে না পরে।

কিন্তু একটা প্রশ্ন প্রায় মনের মাঝে উকি মারে-
” এতদিনের পরিশ্রমে জন্মানো হলুদ গোলাপটা কে কেনো তুই লাল গোলাপে বদলাতে গেলি?”
হলুদ টা কি খুব বেশি খারাপ ছিলো?

বিঃদ্রঃ এটি কোন সাহিত্য নয়,আমি যেভাবে কথা বলি সেভাবে লেখা।এর মাঝে সাহিত্য খুঁজে সময় নষ্ট না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করছি।

৮৯৮জন ৯০০জন
0 Shares

৩৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ