বারান্দা থেকে

শুন্য শুন্যালয় ২১ নভেম্বর ২০১৫, শনিবার, ০৭:১৬:২৩পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি, ছবিব্লগ ৭৫ মন্তব্য

কেউ যখন আমাকে জিজ্ঞেস করতো, কেমন আছো? আমি হেসে বলতাম, আমার আছে ঘরের মধ্যে ঘর, কার সাধ্য আমাকে খারাপ রাখে? নেহায়েত দুস্টুমি করে বলা নয়, এটা আমার বিশ্বাস। ব্যাক্তিগত প্রসঙ্গ গুলো এড়িয়ে যেতে চেষ্টা করি লেখায়, তবুও হয়তো এসেই যায়। কথায় কথায় অনেককেই বলতে শুনেছি, দুজনের পছন্দের মিল না হলেও সমস্যা নেই, মনের মিল হলেই যথেষ্ট। আমার মাথায় আসেনা সব পছন্দের অমিল হলে মনের মিল কি করে সম্ভব?
বাবা – মা পরিবারের কাছে আমাদের চাওয়া গুলো একটু ভিন্ন হয়। নিজের ইচ্ছের ডালপালা গুলো সবচাইতে কাছের মানুষটির কাছেই দুহাত মেলে প্রসারিত করে ধরি আমরা। ওই যে আমি আমাকেই ভালোবাসি, তাই আমাকে খুঁজে পেতেই তোমার কাছে এসেছি, এমনটাই। আমরা আসলে নিজেকেই খুঁজে বেড়াই।
ঘুরে বেড়ানোর নেশা ছিলো, ঠিক নেশা বললে মনে হবে অনেক ঘুরতাম। আসলে তা নয়। সুযোগ পেতাম না তেমন। তবে ইচ্ছের পাহাড় সাগর নদী আকাশ ছুঁই ছুঁই ছিলো। ইচ্ছেগুলো যেখানেই যতটুকু ছুঁক, বাস্তবটা যেন ভিন্ন হতে পারলেই বেঁচে যায়। হলোও তাই। পছন্দ অপছন্দের অমিলে নিজেকে বন্দী করে ফেলতে হয়েছে একটা দৃশ্যমান ঘরে। চাইলেই অনেক কিছু পারি আমরা। করে তো আজকাল অনেকেই। মিলের অমিল হলেই ছেড়ে যাওয়া। এরপর? একাকী নিজেকে সুখী করতে পারবো? যদি না পারি? অন্য আরেকজনে আবার ফের খুঁজে ফেরা নিজেকে? হবে তার সাথে আবারো শতভাগ মিল? ভীরুরা হয়তো নিজেকে এভাবেই প্রবোধ দেয়, আমিও তেমনি। খুঁজে নিলাম এঁদোকাঁদার মধ্যে আমার নিজের ঘর। আমার প্রিয় মানুষটি একদিন আমাকে বললো, নিজের জন্য একটা বারান্দা রেখো, যদি মনে করো সেখানে আমাকে যেতে দেবেনা, তাহলেও সমস্যা নেই, তবু একটা বারান্দা রেখো। আমার ঘরের মধ্যে ঘর আর তার লাগোয়া এক বারান্দা নিয়ে গড়ে তুলেছি শুন্যালয়। আমি সুখী, খুব সুখী।

বারান্দা থেকে তোলা কিছু ছবি নিয়েই এই পোস্ট—————-

20150623_073218 []ঘুম ভেংগে আমার ভোর আমাকে কোথায় যেন নিয়ে যায়। এ বারান্দা থেকে দূরে বহুদূরে। এ আলো মেঘের কুয়োয় টুপটুপ করে ভেঙ্গে পড়তে থাকে টুকরো পাথর …

IMG_1881 (3)আগুন আঁচে পুড়ানো আঙ্গুল চেপে ধরি শিশিরের গায়ে। জল গড়িয়ে গড়িয়ে নেমে যায়। শিশির আর জলে তখন কি তফাৎ?

IMG_3908 []দুটি চুপচাপ ঘুঘু শুধু গলায় স্বর তুলে কি যেন বলে আমায়।
আমি কি বেজোড়? নাহ, আমার দুটি চোখ, দুটি ঠোঁট। দুইটা হৃদয়।

IMG_5733 [] []বৃষ্টি নামলেই আমি ভিজি ফুলের মতই। লিটন সেতুর উপর ভেজা পায়ের দাগগুলো মিশে গেছে কি অসংখ্য দাগের ভিড়ে?

IMG_5292 []রংধনূ সরল এক ফোঁটা বৃষ্টিকণার মাঝে যেন সাতটি জটিলতা। অথবা যা দেখতে পাই, তার ভেতর খুঁড়ে দেখতে পাওয়া সাত গুনিতক।

IMG_5559 [] []সাদা ভাবছে, ইশ কি টুকটুকে লাল আর লাল ভাবছে, আহ্‌ কি শুভ্র সাদা! আর আমি ভাবছি বিপরীত আর তুলনা বলে কিছু না থাকলেই ভালো ছিল। আমি আমার মতো।

IMG_2978 (3) []এক শহর থেকে আরেক শহর দেখিনা। দেখিনা এদেশ থেকে ওদেশ। লক্ষ্য কোটি দূরের চাঁদের গায়ে পাহাড় দেখে ভাবি, দূরত্বও এক রহস্য! কাছের মানুষ দূরে ওই চাঁদের মতো, আর সে? যেন চাঁদের অই দাগপাহাড়।

———————-নিজেকে সুখী করা সহজ, অসুখী করে রাখবার চাইতেও।

২৩২৬জন ২৩২৬জন
0 Shares

৭৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ