11822272_693220010783080_5197973730224278534_n
দশ বছরের শাহাবানু ফ্রক পরে ছুটত এ বাড়ি সে বাড়ি। হঠাৎ ছোটা ছুটি বন্ধ। খাঁচা বন্দি হয়ে গেলেন শাহাবানু। জন্মভূমিতে অবরুদ্ধ হয়ে পরলেন।ভারতের নাগরিক ছিলেন আগে। ৪৭ এর দেশ বিভাগ পালটে দিল সব।৪৭ এর আগস্টের পর ভারতের নাগরিক হলেন ঠিকই,তবে তার জন্মভূমির চারিদিক হয়ে গেলো পাকিস্তান।সিট মহল নামের খাঁচায় বন্দি হয়ে গেলেন তিনি সহ দুই দেশের হাজার হাজার মানুষ। একটি দেশের নাগরিকগণ যে সুবিধা ভোগ করেন তার প্রায় সবগুলো থেকেই বঞ্চিত ছিলেন সবাই।নির্দিষ্ট সীমানার বাইরে অন্য দেশ হওয়ায় ঐটুকু জমিনেই ছিল তাদের বিচরণ। চিকিৎসা,শিক্ষা,বিদ্যুত থেকে বঞ্চিত ছিলেন তারা। আজ ১ আগস্ট আনুষ্ঠানিক ভাবে এই শাহাবানু বাংলাদেশের নাগরিক হলেন।গভীর মমতা আর আবেগে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা গায়ে জড়িয়ে নিলেন মুক্ত পাখি হয়ে। মৃত্যুর পুর্বে অনুভব করে গেলেন মুক্তির স্বাদ।

মানচিত্র পালটে যাবে আজ হতে। লাল ফোঁটাগুলো যা ছিল এতদিন ভারত,আজ হতে তা হয়ে যাবে বাংলাদেশ।
সবুজ ফোঁটাগুলো ভারত হয়ে যাবে।
11828734_693220044116410_1773321355248896404_n

আজ ১ আগস্ট রাত ১২:০১ মিনিটি বাংলাদেশের ছিটমহল গুলোতে আনুষ্ঠানিক ভাবে উত্তোলন করা হবে বাংলাদেশের
পতাকা। সমস্ত ছিটমহল গুলোতে চলছে উৎসব।

Screenshot_5
Screenshot_4
প্রতিটি মুসলমান বাড়িতে ৬৮ টি মোমবাতি এবং প্রতিটি হিন্দু বাড়িতে প্রদীপ জ্বালানো হয়েছিল  ৬৮ বছর পর মুক্তির
এই ক্ষণটি স্মরণ করে।

কিন্তু জনতার তর আর সহ্য হচ্ছে না।তারা আগে ভাগেই উত্তোলন করেছেন জাতীয় পতাকা।
11705038_693220064116408_6283047157758397033_n

বাধ ভাঙ্গা আনন্দে ভাসছে জনতা।আমাদের কাছে বর্তমানে স্বাধীনতা বা মুক্তির আবেগ তেমন প্রভাব না ফেললেও
ছিট মহল বাসী আনন্দে ভাসছে সবাই ৬৮ বছর পরে মুক্ত,স্বাধীন হয়ে।
11752554_693219804116434_7146204320310390249_n

এই আনন্দে সামিল ছোট থেকে বড়রা সবাই।
11222283_693219847449763_5548412352231326478_n

11825708_693219850783096_9175805088457973378_n

ভারতের সাথে ছিট মহল বিনিময়ঃ
আজ ৩১ জুলাই মধ্যরাতে কার্যকর হচ্ছে দুই দেশের ছিটমহল বিনিময়। বাংলাদেশের মূল ভূখণ্ডের ভেতরে থাকা ভারতের ১১১টি ছিটমহল আজ মধ্যরাত থেকে বাংলাদেশের হচ্ছে। এগুলোর আয়তন ১৭১৬০.৬৩ একর। অন্যদিকে ভারতের মূল ভূখণ্ডের ভেতরে থাকা বাংলাদেশের ৫১টি ছিটমহল হয়ে যাচ্ছে ভারতের। এগুলোর আয়তন ৭১১০.০২ একর। কাল থেকে দীর্ঘ ৬৮ বছর ধরে অন্য দেশের মূল ভূখণ্ডের ভেতরে ছিটমহলে অবরুদ্ধ জীবন কাটানো প্রায় ৫২ হাজার বাসিন্দার আজ তাই আনুষ্ঠানিক মুক্তির রাত।

আনুষ্ঠানিকভাবে ছিটমহল বিনিময় অর্থাৎ ৩১ জুলাইকে ধরে কে কোন দেশের নাগরিক হবে সেসব বিষয়ে কাজ করা হয়েছে। যারা ভারতীয় নাগরিক হওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছে তাদের চলে যেতে হবে ভারতীয় এলাকায়। আগামীকাল শনিবার ১ আগস্ট থেকে তাদের ভারতীয় নাগরিক হিসেবে গণ্য করা হবে। আগামী নভেম্বর পর্যন্ত তারা ভারতীয় ও বাংলাদেশের এলাকায় আসা-যাওয়া করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে তাদের জন্য ভারত সরকার ‘ট্রাভেল পাস’ ইস্যু করবে।বাংলাদেশের ছিটমহলে থাকা ৪১ হাজার ৪৪৯ জন বাসিন্দার মধ্য থেকে ৪০ হাজার ৪৭০ জন বাংলাদেশের নাগরিক হওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছে। ভারতীয় নাগরিক হতে চেয়েছে ৯৭৯ জন।

মুজিব-ইন্দিরা চুক্তির ৪১ বছর পর ভারতের অনুমোদন পাওয়ার পরে এই বিনিময় সম্ভব হলো।বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ১৯৭৪ সালে সই হওয়া স্থল সীমান্ত চুক্তি ও এর প্রটোকল বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে কয়েক দশকের পুরনো সীমান্ত সমস্যার স্থায়ী সমাধান হওয়ার পাশাপাশি সীমান্তে আসবে শান্তি। একই সঙ্গে খুলবে সহযোগিতার নতুন দিগন্ত। এ চুক্তি ও প্রটোকল বাস্তবায়নের ফলে ছিটমহলের বাসিন্দাদের গত ছয় দশকের মানবিক সংকটের অবসান ঘটবে। এ ছাড়া রাষ্ট্রের নাগরিক হিসেবে পূর্ণ অধিকার বাস্তবায়নের সুযোগ হবে তাদের। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিক ইচ্ছে এবং প্রচেষ্টায় এই মানবিক সমস্যার স্থায়ী সমাধান হয়ে দু দেশের ৫২ হাজার মানুষ মুক্তির স্বাদ পেলো আজ।

Screenshot_6
Screenshot_7
অন্যদিকে ভারতের প্রাপ্ত ছিট মহলগুলুতেও আনন্দ উল্লাসের মাঝে পালিত হয়েছে মুক্তির এই দিনকে।রাত ১২:০১ মিনিটে ওখানে উড়েছে ফানুস।

শান্তি ও স্বকীয় সৌহার্দ্যের এই বাতাবরণ বজায় থাকুক দু’দেশের মাঝে।

এ সম্পর্কে আরো জানতে চাইলে পড়ুন- ছিটমহল যেন অশ্রু বিন্দু এক একটি

৯৭১জন ৯৭০জন
0 Shares

৩৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ