নারী ও বৃক্ষ আখ্যান

আগুন রঙের শিমুল ৬ জুলাই ২০১৪, রবিবার, ০৯:২১:২৩অপরাহ্ন কবিতা ৩০ মন্তব্য

একটা গল্প ছিল, পাখির।

অথবা নারীর পাখি হবার, মেঘের মত আদুরে

ইচ্ছেদের মত স্বাধীন আর প্রকৃতির মত উদাসীন

তোমার মত ইচ্ছে খুশির ঝলক ছিল অধরে

একটা গল্প ছিল, বৃক্ষের।

বৃক্ষ অথবা মানব, একলা প্রাণ

এক ঠায় দাড়িয়ে সয়ে যাওয়া ঝড় জল

খর তাপে চৌচির,কুয়াশার হিমে জমা,

উষ্ণ আদরে গলতে না জানা, অচঞ্চল

ধীর কিন্ত নিশ্চিত বেড়ে ওঠা, পাতায়, ডালে, শিকড়ে, মায়ায়

নিত্য কর্মের অবসরে, পাখি এসে মানবের প্রাণে দহন বাড়ায়।

একটা গল্প ছিল, প্রেমের।

নারীর পাখি হবার অথবা বৃক্ষের মানব হয়ে ওঠার।

রোদের ছায়া হয়ে, বর্ষণের মায়া হয়ে, পত্র পল্লবে

স্থির বৃক্ষ নারীকে সাজায় অন্তরতমা সাজে।

মানবের আদরে, মায়ায়, তুমুল প্রেমে

পাখীর প্রাণে আগুন, ডানায় ঝড়ের সুর বাজে।

এইবার শেষ গল্পটি, বিশ্বাসের।

অথবা আগাছা এবং পড়োপড়ো দেয়ালের।

নারী আর বৃক্ষের প্রেমে ফুটছিল নিভৃত যতনে

স্বর্গের আলো আর মানবিক সুবাসের ফুল, বিশ্বাস।

ভালোবাসার আলো জলে বেড়ে ওঠে আনমনে

মানবের আদরে পাখিটির ঘুম পায়, পায় ঈর্ষার নীলবিষে

দেয়ালের ফাঁকের আগাছারা পায়, লাল কৃষ্ণচুরা, ভাঁট ফুলেরা

আর পায়, বৃহন্নলাদের নেই নেই চিৎকার, আধ ঘুমে জাগরণে

একটা একটা ইট খুলে পড়ে, গাঁথুনি,

পলেস্তারা, পড়োপড়ো দেয়াল, বিশ্বাস

ঘুমঘোরে পাশ ফিরে শোয় নারী,

জানেনা নিশ্চিত পাহারা দেয়

বৃক্ষের হাহাকার দীর্ঘনিঃশ্বাস।

৬০৮জন ৬০৮জন
0 Shares

৩০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ