অপেক্ষা, অনুমতি অথবা বাঁশির

আফ্রি আয়েশা ৯ জানুয়ারি ২০১৪, বৃহস্পতিবার, ০৩:৫৬:৩০পূর্বাহ্ন কবিতা ৩০ মন্তব্য

উৎসর্গ  ঃ  (আমার এমন একজন বন্ধুকে যাকে মানুষ হিসবে
আমি ১০-এ ৭ দিয়েছি । কবিতার নামটা তারই দেয়া । )

একটু একটু করে তুলে নিলো
মুখরা তারা, প্রিয় ছায়াদাতা, আকাশ, জ্যোৎস্নার ফুলদের …
দিলো কঠিন পাহাড় -বুকে –
বইয়ে কান্না চিরঝর্না ।

প্রশ্ন উঠে আসে- বেঁচে আছো কেনো !?
-জানে সিলিং ফ্যান, জানে দড়িটা, জানে উঁচু টুলটা –
কেনো যে শেষ পর্যন্ত পায়ের নীচ হতে সরে যায় না !!!
-স্লিপিং পিলরাও কোন কার্যকর জবাব হয় না !!!

সিদ্ধান্ত রোমান্টিসিজম দেয় গোপন প্রশান্তি
ঈশ্বর-ঈশ্বরীর পরিণাম নির্দিষ্ট অপ্রকাশিত প্রেম
অপ্রাপ্তি-প্রত্যাশায় কেটে যায় সূর্যবেলা …

মার্সি কিলিং-এর আবেদন
মার্জিত হয় মার্সি সুইসাইড-এ
প্রার্থনা প্রত্যাখ্যান হয়ে ঝুলে রয় ইথারে
অবশেষে শর্ত আরোপিত বিবেচনাধীন স্থগিতাদেশ
দুস্ট রাজা আর জলপরীর অনুমতি প্রযোজ্য
ভালোবাসার নিষ্পাপ-নিষ্ঠুর দাবীদার !

অপেক্ষা রয় কৃষ্ণের বাঁশির
পাওয়া হবে দৈবযান!
যমুনার ঘাটেই ঈশ্বর-মিলন।

৪৮৮জন ৪৮৮জন
0 Shares

৩০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ