আমার পরম সৌভাগ্য যে ১৯৭১ এ বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষন রেডিওতে শুনেছিলাম প্রথম প্রচারেই।
সরাসরি প্রচার করতে দেয়নি
পরদিন শুনেছি।

সে কি উল্লাস মুক্তিকামী জনতার
আব্বা পাই রেডিও এনে রেখেছিলেন দোকানের সামনে, রাস্তায় বিছিয়ে দিয়েছেন হোগলা( পাটি)
শত শত মানুষ হোগলায় বসা
দাঁড়ানো তার চেয়ে বেশী
অপেক্ষা করছিলেন সবাই
কখন ঘোষণাটি আসে
কখন বাঁশিওয়ালা বাজাবেন জনতার হৃদয়ের কাঙ্খিত সেই সুর
অবশেষে —
‘এবারের সংগ্রাম মুক্তির সংগ্রাম,এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’
আকাশ বাতাস কাপিয়ে জনতা শ্লোগান দিয়ে উঠলো……… জয় বাংলা ………
একে অপরকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেললো কিছু জনতা
আনন্দের সে অশ্রু এখনো দেখি আমি………

** এই পাই রেডিও ১৯৭১ এর শত কষ্টের মাঝেও আমাদের পরিবারের সাথে ছিল।আমাদের আশা ভরসার প্রতীক হয়ে। বেঁচে থাকার প্রান ভোমরা হয়ে।যক্ষের ধন কি জিনিস দেখিনি।আমাদের পরিবারের কাছে এটিই ছিল যক্ষের ধন ১৯৭১ এর দিন গুলোতে।পালিয়ে পালিয়ে বিভিন্ন আত্মীয় অনাত্মীয় বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি।বড় ৪ ভাই মুক্তিযুদ্ধে।এর মধ্যে এক ভাইয়ের ১৬ ডিসেম্বরের পুর্বে কোন খোঁজোই ছিলোনা।
ঠিক এই মডেলের পাই রেডিওটি বাসায় আছে কিনা এখনো খুজে দেখতে হবে।
কত কিছু বলার বাকী থেকে গেলো ১৯৭১ এর কথা।

জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু

৫০৯জন ৫০৯জন
0 Shares

২৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ