প্রাচীন মিসরীয় সভ্যতার পতনের কারন

দীর্ঘদিন ধরে চলমান খরা, অর্থনৈতিক দুর্দশা এবং মিসরের চারদিকের  বিদেশী শক্তির লোভী দৃষ্টি,এই তিনটি কারনে মিশরীও  সভ্যতা দ্রুততার সাথে ধ্বসে পড়ে আর এই সুযোগে আশপাশের দেশ সমূহ মিশরে প্রবেশ করে এবং নিজেরাকে মিশরীয় প্রমান করার অভিনয় করে ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে থাকে

 

নিউ কিংডমের সময় ( 1550-1070BC) মিশর ক্ষমতার শীর্ষে উঠেছিল। এই সময়ে বিখ্যাত তুতেমাস ৩,তুতেনখামন এবং র‍্যামেসেস ২ এর মতো   কিছু শাসকের উদ্ভব হয়। এই সময় মিশরের সীমানা সাইনাই, গিজা, জর্ডান, সিরিয়ার দক্ষিণ অংশ এবং  ক্যানান (canan) বর্তমান ইজরাইল এর পশ্চিম ভাগ পর্যন্ত বিস্তৃত হয়।

১১৫৫ BC সালে র‍্যামেসেস ৩ কে হত্যা করার পর তাদের সাম্র্যাজ্যের  ক্ষমতা ধীরে ধীরে নিচের দিকে নামতে থাকে।

দীর্ঘ দিন ধরে চলমান খরা, অর্থনৈতিক ক্রাইসিস এবং বিদেশী শক্তির দখল করার লোভী দৃষ্টির ফলে মিশর ক্ষমতা হারাতে থাকে।

র‍্যামেসিস ৩,  মিশরে একত্রিশ বছর ধরে শাসন করেছিলেন এবং তাকেই ধরা হয় ক্ষমতাধর সর্বশেষ ফ্যারো

তারপর সমুদ্র দিয়ে আসতে  থাকে আসপাশের সি পিপুল ( Sea People) । সি পিপুল হল ১৫০ বছর ধরে চলমান খরা দ্বারা আক্রান্ত দেশ ছাড়া দখলদারি মানুষ। যারা কমপক্ষে দুইবার আক্রমণ চালায়  মেরেনপাথ এবং র‍্যামেসিস ৩ এর আমলে।

‘মেডিনেট হাবু টেম্পেলের’  দেয়াল দেয়ালে  আঁকা আছে এই বিতাড়িত করার দৃশ্য এবং জয়লাভের সেলুব্রেসানের ছবি  । কিন্তু সেই সেলুব্রেসান ছিল মাত্র অল্প সময়ের জন্য।

ইতিহাসবিদ এবং আরকেওলজিস্ট Eric cline তার লেখা বই ‘1177 BC,The Year Of Civilisation Collapsed’ বইতে লিখে গেছেন ‘হয়তো র‍্যামেসিস ৩,  সি – পিপল কে প্রতিহত করতে পেরেছিলে কিন্তু নিজ হারেমের মধ্যে সেকেন্ডারি রানীর কাছ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারিনি।

C T স্ক্যান দিয়ে তার মমি পরীক্ষা করে ধরা পড়ে তার গলা ধারালো অস্ত্র দ্বারা বিচ্ছিন্ন করে কাটা এবং তা একের পর  এক লেনিন দিয়ে পেঁচানো অবস্তায় রাখা । তাকে হত্যা করা হয়েছিলো ১১৫৫  BC তে ।

সেটাই ছিল শেষ হওয়ার আরম্ভ। ‘That was the beginning of the end’ বলেছেন Cline। ‘মিশর আর কোনো দিনই  আগের অবস্থায় ফিরে যায়নি আর  আগের মিশরও কোনো দিন আগের মতো হয়নি’ ।

মহামারী, দুর্ভিক্ষ এবং টুম্ব রাবারিঃ

র‍্যামেসিস ৩ এর মৃত্যুর পর ‘র‍্যামেসিস’  নাম নিয়ে অনেক ফ্যারোই আসে  কিন্তু তাদের কেউই সুদক্ষ শাষক  ছিলনা। র‍্যামেসিস ৫ এর সময় মহামারী আকারে স্মল পক্স ছড়িয়ে পড়াতে অনেক মানুষ মারা যায়।

তারপর  দেখা যায় র‍্যামেসেস ৫ এবং র‍্যামেসেস ৬ এর সময় সাইনাই এর কপার খনি হাত ছাড়া হয় ।কারন সেখানে তাদের নামই  ছিল লাস্ট ফ্যারো  হিসেবে শেষ নাম। ক্লাইনের মতে ১১৪০ সাল থেকে মিশর সাইনাই এবং কানান(বর্তমান ইজরাইল)  থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

টুম্ব  রবারীঃ

র‍্যামেসিস ৯ এর সময় থেকে টুম্ব রবারি প্রকট আকার ধারণ করে। তাদের প্রতি সন্মান দেখানো থেকে সরে যায় জনসাধারণ। মমি ভেঙ্গে  ফেলে লুটপাট এতোই বেড়ে যায় যে র‍্যামেসিস ১১ এর সময় কবর থেকে সব মমি সরিয়ে এনে লুকিয়ে রাখা হয় যাতে  তারা নিরাপদে জীবনের  পরবর্তী গন্তব্যে ফিরতে পারে।

সিংহাসন বিদেশী শক্তি দ্বারা দখল হয়ে যায়ঃ

নিউ কিংডমের পর  থেকেই মিশর বিদেশীদের দখলে চলে যায় । ‘Shoshenq’ বা সহসহেনিক নামে প্রথম একজন লিবিয়া থেকে আসা মানুষ নিজেকে ফ্যারো বলে ঘোষণা দিয়ে ক্ষমতা গ্রহন করে।

তারপরেই অষ্টম সেন্চুরি BCতে নিউবিয়ান বা কুশেটি মিশর দখল করে এবং একশত বছর ধরে ক্ষমতায় থাকে। তাদের চেয়ে শক্তিশালী ‘অ্যাসেরিয়ান’ মিশরে প্রবেশ করে ক্ষমরা গ্রহন করলে কুসেটিরা  পিছু হটতে থাকে।

ক্লাইন(Cline) এর মতে কুসেটিদের দখল মিশরের শেষ পরাজয় । তারপর অ্যাসেরিয়ান,পারসিয়ান,গ্রীক ,রোমান এবং অ্যারাব এক এক করে এসে মিশরের মসনদে বসে।

মিশর আর সেই আগের মিশর কোনদিনও  হয়নি ।

৩৩২ BC আলেকজান্ডার দি গ্রেট তার সেনা বাহিনী সহ মিশরে প্রবেশ করে তার জেনারেল টলেমী পরবর্তী তিনশত বছর ক্ষমতায় থাকে।

৩০৫-৩০ BCতে মেসোডোনিয়াম গ্রীক ফ্যারো  মিশর শাসন করে। যাকে বলা হয় টলেমিক ডাইনেসটি  (Ptolemaic Dynesty)। ক্লিওপেট্রা ছিল এসময়ের একজন শক্তিশালী শাসক।

তারপরে ক্লিওপেট্রা এবং মার্ক এন্থনি রোমান সম্রাট অকটেভিয়ান ( ৩০ BC)  মিশরকে রোমান সাম্রাজ্যের  একটা প্রদেশে পরিণত করে। এবং এর মধ্যে দিয়েই প্রাচীন মিশরের সভ্যতা সমাপ্তি হয়।

লেখক ও গবেষকঃ হুসনুন নাহার নার্গিস , লন্ডন

 

৩৬৬জন ৩৬৪জন
0 Shares

৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ