তোষামোদ

রিতু জাহান ১৪ ডিসেম্বর ২০১৫, সোমবার, ১১:৫৫:০৩পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৭ মন্তব্য

হুজুর বলিলো “চমৎকার”
চামচা বলিলো” চমৎকার,সে তো হতেই হবে যে, হুজুরের মতে অমত কার!”

তোষামোদকারী ব্যাক্তি যারা,তারা মুলত নিজেদের জন্য ও সমাজের জন্য কিছু করার যোগ্যতা রাখে না।তারা অকর্ম বলেই যোগ্য ব্যক্তিকেও অযথা অযোগ্য করে তোলে।
মানুষ মাত্রই ভুল হয়।তা সে যতো যোগ্য লোকই হোক না কেন।আর এই ভুল ধরিয়ে দিয়ে তাকে বুঝিয়ে ভালো পরামর্শ দিয়ে,গঠনমূলক কাজ করাই মানুষের স্বাভাবিক প্রবণতা হওয়া উচিৎ।স্বাভাবিক কাজগুলোর প্রশংসা স্বভাবতই আমরা অত্যন্ত পছন্দ করি।
তোষামোদকারী ব্যাক্তি যোগ্য ব্যাক্তিকে তার বিশেষ বিশেষ কাজের জন্য অতিরঞ্জিতভাবে প্রশংসা করে।তার মন্দ দিক গুলো এড়িয়ে গিয়ে বিপক্ষের মানুষের উপর আঙ্গুল তোলে।এতে যোগ্য ব্যাক্তি তুষ্ট হলেও, সমাজ, রাষ্ট্র,ঐ যোগ্য ব্যাক্তি কিন্তু ক্ষতিগ্রস্থ হয়।যোগ্য ব্যক্তিটি সাধারণ মানুষ থেকে দূরে সরে যায়।তোষামোদকারী আমাদের সমাজে কম নয়।সব ক্ষেত্রেই আছে এই তোষামোদকারী।মানুষ স্বভাবতই তোষামোদ ভালোবাসে। তাই তো তোষামোদকারীরা হাজার বছর ধরে টিকে আছে।এরা নিজেদের বিবেক,বোধ,ব্যক্তিত্ব,সন্মান সবই মাটির নিচে চাপা দেয়,নিজের স্বার্থ উদ্ধারের জন্য।একটু ঠাঁট বাট দেখানোর জন্য এক ধাপ উপরের ব্যাক্তির পায়ের জুতাও খুলে দ্বিধাবোধ করেনা।

আমরা সব কিছুর জন্য সরকার প্রধানকে দায়ী করি।কারণ তার আশেপাশে অনেক তোষামোদকারীই তারই ছত্রছায়ায় টিকে আছে।সরকার প্রধান যখন কোনো স্থান পরিদর্শনে যান বা উদ্ভোধন করতে যান,তার চলার পথের সব রাস্তা,অফিস,সরকারি,বেসরকারি প্রতিষ্ঠান চকচকে ঝক্‌ঝকে করে রাখা হয়।তাও হয় ক্ষণস্থায়ী। নিম্নমানের উপাদান দিয়ে রাস্তা ঠিক করা হয়।এক বর্ষাকাল যেতে না যেতেই যা তা অবস্থা।তারা আসলে দেখাতে চায়,জনগন তো ভালোই আছে।আর এভাবে সরকারি টাকাও নষ্ট হয়।আর সরকারেরও আসলে বোঝার উপায় নাই কি হচ্ছে।

যাই হোক যা বলতে চাই,সমালোচনা সহ্য করার ক্ষমতা থাকতে হবে সবাইকে।আর সমাজে তোষামোদকারীর সংখ্যা যদি বেড়ে যায়,তাহলে প্রকৃত কাজের লোকের সংখ্যা কমে যাবে।কারণ ব্যক্তিত্ববান প্রকৃত কাজের মানুষগুলো যখন কাজ করতে চায় তারা এই তোষামোদকারীদের জন্য দূরে সরে যাবে।

১০০৩জন ১০০৩জন
0 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ