উদাসীন শব্দ আমার

রিতু জাহান ৪ আগস্ট ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ০৯:৫৩:০৮অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৬ মন্তব্য

13871923_859590960812650_302709694_n
শব্দের মালা গাঁথব বলে
চলে এলাম এই বৃক্ষের ছায়া হিমশীতলে,
পাশে এই ছোট্ট দীঘি, বুকে তার শাপলা গন্ধ,
আমার তাকানোতে হেসে বলছে,’তোমার কলমের কাগজবুকে  বসে যাই একটুখানি।’
আমি বললাম ‘তোমার জন্য মেলে রাখা ঐ সবুজ পাতায় দেখ দু’টো প্রজাপতি,
বোঝ তুমি ওদের কথা? একটু শোনাও তো আমায় দেখি’।
শব্দের যাদু নেই আমার, নেই কোনো অন্তমিল, নেই কোনো ছন্দ!
শব্দেরা বোবা কালা নয়, জড়ও নয়। তবু আমার খাতার বুকে, নড়েচড়ে কখনো বসে না।
শব্দের ওঠাবসা, খুনসুটি, দুষ্টমি নীলার খাতায় মানায় দারুণ,
শূন্য নাম হলেও, শূন্য নয় খাতা তার, শব্দেরা শূন্যালয়ে নেচে চলে আসে।
খাতার বুকে পাথরের মতো ভারী ও নিথর হয়ে পড়ে থাকে।
আজ এখানে একান্তে দীঘির শাপলা, পদ্ম, পদ্ম পাতার ফড়িং জোড়ার নাচুনি্র মাঝে শব্দেরা আজ ভিন্ন অস্তিত্বের কথা বলে।
hdr
এই যে ছায়ার মায়া নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে দেবদারু গাছগুলো, ওরাও মৌনতায় শব্দঅস্তিত্বের জানান দিচ্ছে।
মেঘের রঙের নানামাত্রিক শব্দ।
কখনো কালো গম্ভীর গর্জে ওঠে,
কখনো সাদা ঐ শুভ্র মেঘের বুকে ছুটে বেড়ানো নীল নীল নীলাদ্রি শান্ত আকাশ।
প্রকৃতির এই শীতল ছায়ার মাঝে, এই গাছের মোড়ায় বসে পায়ের তলে শুষ্ক তৃণখণ্ড ও শুঁকনো পাতার মরমর ভেঙ্গে যায়ার শব্দে আলস্যের গহবর থেকে জেগে উঠি।
Post Final .
দীঘির জলের আয়নায় মুখটা কেমন!
দেখি, প্রকৃতির মায়াময় ভুবনে কখনো অশ্রু উজ্জল।

****************************************
এই লেখাটি জিসান ভাইয়ার গাছের গুঁড়িতে, দেবদারুর ছায়াতলে বসে লেখা।
ধন্যবাদ জিসান ভাই।
উৎসর্গঃ সোনেলার সোনালী তাজকে  -{@

১০২৩জন ১০২৩জন
0 Shares

৩৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ