গোপন কথাটি রবে গোপনেই

ছাইরাছ হেলাল ১৮ অক্টোবর ২০১৫, রবিবার, ০৮:৩৪:২৫অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৯৬ মন্তব্য

স্মৃতিঃ
শঙ্খনীলের পুড়িয়ে দেয়া চিঠি প্রীতি
গতজন্মে লুকিয়ে পড়লো এজন্মের আধ খাওয়া স্মৃতি……

অবিরাম বয়ে যাওয়া শান্ত নদীঃ
কোথায় সে কাঁচপোকা, কচলানো ধুলোবালির রেখা?
শান্ত নদী বয়ে যায় অবিরাম, সাথে তার শুকনো শাখা।

রিনঝিনঃ
নেবে তুমি, ছোঁবে রিনঝিন শব্দাবলী?
যুক্তাক্ষরে ভয় পেওনা, এসো একটা একটা করে খুলে ফেলি.

জলতরঙ্গের টুং টাং শব্দঃ
উহু হবেনা চোখের জলে টুংটাং শব্দ
তরঙ্গ হবেনা, দেখবেনা কেউ, গড়িয়েই হবে স্তব্ধ।

ঝমঝমঃ
ঝমঝম করে দুপুর হাসে, দেখার কেউ নেই
আঁধার হলেই সেই হাসিতে ভয়ে হারায় খেই।

টিনের উপরে বৃষ্টির গানঃ
বৃষ্টি গায় গান টিনের উপর, নাচে এদিক বিদিক
ইটের ছাদ দুঃখে কাঁদে, চোখ পড়েনা সেদিক।

সেতার বেহালাঃ
আমি খুঁজেই মরি সেই সুর, উঠি নামি সেতার বেহালায়
আমার খোঁজাই সার, কি জানি কোথায় সে হারায়।

এটি শুন্য শুন্যাল্যের একটি মন্তব্য।(কোথায় করেছে তা বলতে চাই না, খুপ কষ্ট)
মন্তব্য যদি এমন হয়, লেখার আর কী দরকার!!!
এবারে তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে চোখ বন্ধ করে ভাল করে নীচের নকল প্রবণ লেখাটি লক্ষ্য করুন, মাছি মারা কেরানীর যে যোগ্যতা থাকে তাও না থাকা সত্ত্বেও কী এক হাস্যকর প্রচেষ্টা, এত্তো সোজা না নকল করা, ধিক এহেন প্রচেষ্টা।

স্মৃতিঃ
শঙ্খনীলের পুড়িয়ে দেয়া প্রাণের চিঠি প্রীতি
গত জন্মে লুকিয়ে পড়লো এ জন্মের উথলে ওঠা স্মৃতি……

অবিরাম বয়ে যাওয়া শান্ত নদীঃ
কোথায় সে কাঁচপোকা, সোনার ধুলোবালির রেখা?
শান্ত নদী বয়ে যায় অবিরাম, সাথে তার স্পন্দনের শাখা।

রিনঝিনঃ
নেবে তুমি এই আমাকে, ছোঁবে রিনঝিন শব্দাবলী?
যুক্তাক্ষরে ভয় পেও না, এসো একটা একটা করে সব কটা খুলে ফেলি।

জলতরঙ্গের টুং টাং শব্দঃ
উহু হবেনা চোখের জলে টুংটাং শব্দ
তরঙ্গ হবে, দেখবে সবাই, গড়িয়েই হবে না স্তব্ধ।

ঝমঝমঃ
ঝমঝম করে দুপুর হাসে, দেখাছে তা কেউ
আঁধার হলেই সেই হাসিতে উথলে ওঠে ঢেউ।

টিনের উপরে বৃষ্টির গানঃ
বৃষ্টি গায় গান টিনের উপর, নাচে এদিক বিদিক
ইটের ছাদ হেসে বলে, আসবে জানি এদিক।

সেতার বেহালাঃ
আমি খুঁজেই মরি সেই সুর, উঠি নামি সেতার বেহালায়
আমার খোঁজাই সার!! হঠাৎ ই সে সারা দেয় এ বেলায়।

উৎসর্গঃ
সোনেলার প্রাণ নারী, ব্লগের মধ্য মনি, কানপড়ার রানী, রংবতী কন্যা (ইদানিং প্রকাশ্যেই),
কঠিন লেখার জননী ও আমারও প্রাণের চেয়েও প্রিয় ভাউ, তার মুকুটে নুতন পালক সংযোজন করেছেন, তবে আমার অজান্তে (এ দুস্ক কাহারে জানাই)। সহজে সে ইচ্ছে করলেই লেখা যায়, এ লেখা তার উদাহরণ হয়ে রইবে। সবাই তা পারে না, আমি তো পারিনি। (প্লিগ শিখিয়ে দিন) আবার লেখাটি গায়ে-গতরে যতই সহজ মনে হোক না কেন, লেখার ভাবটি জলবৎ তরলং ভাবার কোন অবকাশ নেই।
কুটি লেখার জননী হয়ে আমাদের হৃদয়ে থাকুন। সাইড-ফাইডে আম্রে ও রাকুন।
আমীন আমীন।

৭৭১জন ৭৭১জন
0 Shares

১৯৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ