আমাদের জীবনের চারপাশে রয়েছে সুবিস্তৃত জগৎ। সে জগতে বিচিত্র শ্রেণীর সব মানুষের বাস। কথায় বড় বড় চমক সৃষ্টি করতে পারে, সেই কথায় বাস্তবতা না থেকে থাকে ন্যাকামো, হিংস্রতা। এই বড় বড় কথার অধিকারী মানুষ শেষাবধি ময়ূরপুচ্ছধারী কাকের মতো মানুষের বিরক্তি উৎপাদন করে। এরা বোকার খোলস পরে, তাদের বাক্য জৌলুসে বিভ্রান্ত করে অগনিত মানুষকে, ক্ষতি করে চমৎকার সব সৃষ্টি। আশেপাশে সৃজনশীল মানুষের মনকেও তারা বিষিয়ে তুলতে চায়। একদিন এই চালাকি কিন্তু ঠিকই ধরা পড়ে।

এই পৃথিবীতে প্রতিটা মানুষই আলাদা, আমিও আলাদা, আমার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যও আলাদা। আমি অনেক কিছু মেনে নেই- আবার মেনে নেই না, যাকে বলে আপোষ। আমার কাছে বোকামি এক জিনিস, অভিমান এক জিনিস, রাগ আর এক জিনিস। কিন্তু হিংস্রতা ! তা ক্ষমার অযোগ্য। রাগ হলে অভিমান হলেই কুৎসা রটাতে হবে ?

আমার চরিত্রের বৈশিষ্ট্য আনুযায়ী, আমি সেই সব লেখকের বইও পড়ি না, যার লেখা শব্দের সাথে লেখকের বাস্তব জীবনের কোনো মিল নেই। শ্রদ্ধা, স্নেহ, এই শব্দটা আমার কাছে সস্তা নয়। আমি ফ্যাস ফ্যাস করে কান্না করে ন্যাকামো করা মানুষদের ও দু চোখে দেখতে পারি না।

যে মানুষগুলো হিংস্রতার বশবর্তী হয়ে অন্যের গায়ে কাঁদা ছিটায়, তাদের বড় ঘৃণা করি। আসলে এই মানুষটির মূলত তাদের পায়ের হেঁটে যাওয়া পথের ধূলারও সমান যোগ্যতা নেই। দু-কলম চলতে শিখে, নিজেদের অবস্থান নিয়ে এমন গর্ব করে যে সেই অহংকারে ভেবে দেখে না এই অবস্থানের পিছনে কার অবদান রয়েছে। এরা প্রকৃত পক্ষেই অকৃতজ্ঞ, কৃতঘ্ন ও গর্বিত কুলাঙ্গার। আশেপাশের অনেককেই এই পথে নিয়ে আসতে চায়। কিন্তু সবাই কি মূর্খ !

পৃথিবীতে যারা প্রকৃত জ্ঞানের গুণের অধিকারী, যারা সর্বার্থেই প্রকৃত বড়, তারা বিনয়ী হন এবং স্তুতি, চাটুকারিতা অপছন্দ করেন।

অনেকে সব সম্পর্কের মধ্যেই একটু যৌন সুড়সুড়ি অনুভব করেন। কেউ কারো সাথে একটু হেসে কথা বললে, একটু নমনীয়তা দেখালেই সেখানে এই সুড়সুড়ি অনেকেই অনুভব করেন। কখনো একসঙ্গে কোনো দুজনের অনুপস্থিতিতেও সেই সম্পর্ককে একটু যৌনতার, একটু প্রেমের ফ্রেমে বাঁধতে যে কি সুখ! আহা ! বোকা মানুষ! আমি কঠিন শব্দ ‘এ্য’ বুঝি কিন্তু সহজ শব্দ ‘অ’ বুঝি না। আমি এইসব ‘এ্য’ বুঝক মানুষদের রাস্তায় দৌড়ানো বদ্ধ উন্মাদের মতো মনে করি, ভিড়ের মধ্যে দেখি ঠিকই কিন্তু এড়িয়ে যাই। আমি হয় ইগনোর করি, নতুবা পালিয়ে বাঁচি। কিন্তু কখনো আছাড় মারতেও পছন্দ করি।

আমি যে মাছ জিইয়ে রেখে খাই, সেই মাছের মধ্যে কোনো একটি নষ্ট হলে ফেলে দেই। কারন তা আর হালাল থাকে না। স্বাস্থ্যকর তো নয়ই।

আমি যাকে শ্রদ্ধা করি, ভালোবাসি, বিশ্বাস করি তাকে খুবই বিশ্বাস করি। উটকো কোনো মানুষই তা ভাঙতে পারবে না। কারণ আমার বিশ্বাসই বড় বিশ্বাস।

বিঃদ্রঃ অনুগ্রহ পূর্বক এই পোষ্ট কেউ ব্যাক্তিগত ভাবে নিবেন না।

৫৭৯জন ৫৭৯জন
0 Shares

৪৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ