সমাধান কোথায় ???

কিছু দিন আগে মিরপুরের বিহারী পল্লীতে দশ জন কে পুড়িয়ে মারা হয়েছে , এর মাঝে শিশু ও আছে ।

ফেবু সহ বিভিন্ন সামাজিক ওয়েব সাইটে দেখা যাচ্ছে কেউ মানবতার পক্ষে বলছেন ওদের উপর নির্যাতন করা ঠিক হয়নি । যদিও এই বিহারী রা একাত্তরের যুদ্ধে র সময় ব্যাপক ভাবে বাঙ্গালিদের উপর অত্যাচার চালায় ।

তারপরও কি সেই যুদ্ধকালীন সময় সময় বিবেচনায় ওদের উপর অত্যাচার করা বৈধ হবে ? একটা নিরাপরাধ শিশু জাতীয়তাবোধের কি বোঝে?

তাকে পুড়িয়ে মারা কতটুকু সমর্থন যোগ্য??

অনেকে হয়ত বলবেন যুদ্ধের সময় তো ওরা আমাদের শিশু বুড়ো কাউকে বাদ দেয়নি তাহলে আমরা কেন ছাড় দেব??

কথায় কিছুটা যুক্তি আছে । আবার এটাও বুঝতে হবে তখন ছিল যুদ্ধ কালীন সময় তখন কার আইন আর এখন কার আইন সমান নয় ।

শিশু নির্যাতন তারাও কম করেনি তাই তাদের শিশুদেরও নির্যাতন ভোগ করতে হবে । একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান যদি উত্তরাধীকার সুত্রে রাষ্ট্রীয় সুযোগ সুবিধা ভোগ করে তাহলে একজন যুদ্ধ অপরাধী র সন্তান কেন শাস্তি ভোগ করবে না ।

সেই যুক্তিতে বিহারী শিশু পুড়িয়ে মারা দোষের কিছু নয় ।

এভাবে যুক্তি পাল্টা যুক্তি দিয়ে অনেক কিছুই বোঝা বা বোঝানো সম্ভব ।

কিন্তু বাস্তবিক অর্থে একবার ভাবুন তো জাতীয়তাবোধের আড়ালে আমাদের মনুষ্যত্ববোধ ঢাকা পড়ে যাচ্ছে না তো !!!

ধর্ম আর জাতীয়তার প্রেমে আমরা মনুষ্যজাতী বিভক্ত হয়ে পড়ছি

সৃষ্টির সেরা জীব হয়ে একে অপর কে হত্যা করে আনন্দ লাভ করছি ।

এই সংঘাতময় অবস্থার শেষ কোথায় ?

৪৪৪জন ৪৪৩জন
0 Shares

১২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ