বৃষ্টি নেমেছে, অঝর বৃষ্টি, অনেকদিন বৃষ্টিতে ভিজি না সময় কিংবা সুযোগের অভাবে। আজ বাসার পিছনে বাগানের শেষ প্রান্তে শিঊলি ফুল গাছের নিচে বসে আছি একা। একটা সময় ছিল যখন বৃষ্টিতে খুব হই চৈ করতাম, এখন সেই সময় ফুরিয়ে গেছে। বৃষ্টিতে ভিজার ও একটা মানে থাকে হয়ত সবার জীবনে, শৈশবে বৃষ্টি মানে হৈ চৈ, লাফালাফি, কাদা ছুরা খেলা আর মায়ের বকুনি, আর এখন বৃষ্টি মানে তোমার স্মৃতির গালিচায় হেলান দিয়ে চুপচাপ কোথাও নিরিবিলি একা বসে থাকা।

মনে আছে তোমার! বৃষ্টি নিয়ে তোমার সাথে কত কথা, কত অনুরুধ, কত আনুনয় কেননা তুমি বৃষ্টিতে ভিজতে চাইতে না। ঠান্ডা জনিত সমস্যা চীরকাল তোমার বৃষ্টির সাথে শত্রুতা। আমি বলতাম আমার হাত ধরে ভিজো, দেখো কিছু হবে না তোমার, তুনি তাতেও রাজি হতে না, শেষ পর্যন্ত আমি বলতাম আচ্ছা ঠিক আছে আমি ভিজব, তুমি বারান্দায় দারিয়ে থেকো। আমার খুব জানতে ইচ্ছে করে বৃষ্টি এলে তুমি কি এখনও বারান্দায় দারাও!!! বৃষ্টিতে হাত বারিয়ে দাও??

এখনো সারাদিন আমি অপেক্ষা করি একটি ম্যাসেজের জন্য, ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জার, ভাইবার, ইমু, সব অ্যাপ অনলাইন রেখে আমি অপেক্ষা করি ম্যাসেজের জন্য। সারাদিন ম্যাসেজ আসে তবে সেই হাজারও ম্যাসেজের ভীরে তোমার ম্যাসেজ থাকে না। আমি বুঝেতে  পারি না কোন মানুষ ,  আমাকে এতটা দুর্বল কেন করে দেয়, আমি বুঝতে পারি না, একটা মানুষ কেমন করে আমার সাজনো , গোছানো বাগান বৈশাখী ঝরের মত ছিন্ন ভিন্ন করে দেয়! এত গুলি প্রশ্নের ঝুলি কাঁধে  নিয়ে আমি উত্তর খুজে বেরাই অতিতের ভাংগা স্বপ্নের ঝুড়িতে।

কতদিন ভেবেছি সবকিছু ভূলে গিয়ে নতুন করে আবার শুরু করব, ভাবনা আমার তোমার আঁচলে লুকিয়ে থাকে তাইত ভাবনার সাথে লুকোচুরি খেলতে গিয়ে আবার তোমার কাছেই ফিরে আসি। একবার নয় বার বার, হাজার, কোটি, লক্ষবার ফিরে আসি। ( চলবে )

৪৪৫জন ৪৪৫জন
0 Shares

২৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ