momiখুব ছোট বেলায় যখন আমি তেমন কিছুই বুঝতাম না পেয়ার বা মহব্বত কি,ঠিক তখন এক রাতে  আমার সারা শরীরের পশমে পরশ বুলিয়ে যায় তার উষ্মতর স্পর্শ যা এক অজানা ভাল লাগার অনুভূতি ছড়ান আমার দেহ মনে।তখন মনে হতো জগৎতের সকল সূখ মনে হয় তাহার স্পর্শের মাঝে আবদ্ধ।যখনি লাঞ্চ কিংবা রাতের খাবারের জন্য টেবিলে বসতাম তখনি সে আসত অতি চুপি চুপি কেউ যেন বুঝতে না পারেন বিশেষ করে আমার মরহুম পিতা।পিতাকে সে খুব ভয় পেত কেননা এক রাতে তাকে আমার রুমে আমার সাথেই শুয়েছিল কখন যে অতি সূখে দু,জনে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম বুঝতে পারিনি।ঘুম ভেঙ্গে জেগে দেখি সে নেই,কোথায় গেল কখন গেল কেউ কিছুই বলতে পারল না সে দিন থেকেই সে দিল ফাকি হঠাৎ কওয়া নেই বলা নেই সে আর আসছে না,আসে নাই আর।
বয়সের ভারে মাথা নত হতে হতে কর্মের ব্যাস্ততায় জীবন সব ভূলিয়ে দেয় কি প্রেম কি ভালবাসা।হৃদয়ে এখন আর প্রেমময় সূখকর অনুভূতির ডামা ঢোল বাজে না তার পরও প্রেম আসে অতি নীরবে আবার নীরবেই স্বর্গে চলে যায়।
8548675735_9cf91cfc2d_qকত দিন পরে এলে গানটির মতো সে আবারো এলো নীরবে রাতের আধারে।শেষ রাতে মাতাল জানালার কার্নিষে বাশির সূরের মৃদু শব্দে তার আগমনের বায়না বুঝতে পেরে দু-হৃদয়েই হৃদয়ে মান-অভিমানের ঢেউ উঠে।আমি জানি যদি সে বুঝতে পারে আমি জেগে তবে সে ঢুকবে না ঘরে তাই আচ্ করতে পেরে আমি ঘুমের ধরলাম।সে ঘরে ঢুকবার সঙ্গে সঙ্গে জেগে গেলাম।
-কতদিন পরে এলে তাও…দূরে দূরে….কাছে এসো লক্ষীটি..।
-না আমি আসবো না,এলে তুমি আমার সর্বোনাস করবে।
-তাতো করবোই,তুমিইতো বলেছিলে তোমার সব কিছু আমার আর সব কিছু তোমার….এসো,এসো বলছি…কি আসবে না,ঠিক আছে-এই আমি তোমাকে ছাড়াই ঘুম দিলাম।সকাল সকাল উঠতে হবে অফিস আছে।
সকালে ঘুম থেকে উঠে তাকে আর পেলাম না তবে তার পায়ের আওয়াজ,মুখের মধুর শব্দ শুনে বুঝেছি সে এ ঘরেই আছে।তাকে তালা মেরে অফিসে গেলাম।রাত্রী দশদায় বাড়ী ফিরে দরজা খুলে দেখি তার কোন সারা শব্দ নেই।চিন্তায় পড়ে গেলাম তবে কি সে না বলে চলে গেল!তা কি করে হয় সব দরজা জানালাতো লক করাই ছিল।
23604518174_d57b0aa0c3_qতাকে দেখবার অপেক্ষার সাধ আর নেই তাকে মুক্ত বিহঙ্গে স্বাধীন ভাবে উড়ে যাবার অদম্য ইচ্ছায় দরজা জানালাগুলো খুলে রাখলাম নাহ্ দুপুরেও তার দেখা মিলল না।ফের অফিস যাবার বেলায় দরজা জানালা গুলো লক করার সময় হঠাৎ শব্দ এলো আছি আমি এখনো বেচে।মনে খুশির জোয়ার এলো পর্দাটা এবার পুরোপুরি খুলে রাখি যাতে সে তার আপন ভূবনে নির্বিগ্নে যেতে পারে।মনে এক প্রকার চাঙ্গা ভাব নিয়ে অফিস করে বাসায় ফিরে যখন ঝাড়ু দিচ্ছিলাম তখন খাটের তলে প্রিয়ার নিথর দেহটি সামনে চলে আসে।নিজেকে নিজেই অপরাধী মনে হলো কি দরকার ছিল তাকে আটকে রাখবার সে তো আর আমাদের স্বজাতি না যে প্রেম ভালবাসা বুঝবে,ওদের জগৎ আর আমাদের জগতের সামাজিকতার মাঝে বিস্তর ফারাক।ভেবেছিলাম পোষ মানাব কিন্তু সে যে এ ভাবে হঠাৎ না ফেরার দেশে চলে যাবে তা কখনো ভাবিনি।অপরাধী আমি ক্ষমা করো বন্ধু।

প্রথম ভালবাসা ছিল পোষ মানা একটি “বিড়াল”
দ্বিতীয়টি ছিল একটি সবার পরিচিত “চড়ুই পাখি….যার পরিণতি  ছিল মৃত্যু।
ভাল লাগা আর ভালবাসার বিয়টি কোন মানব মানবি নয়।মানবের প্রেম ভালবাসা যে শুধু মানব কেন্দ্রিক তা কিন্তু নয় এর বাহিরেও আছে প্রেম ভালবাসার রচিত অসংখ্য কাহিনী এই আমাদের সোনেলায় আছেন….. ;?
জিসান ভাইয়ার পাখি প্রেম,
তাজ আপুর এ্যাকশান
নন্দিনী আপুর ত্রাস প্রেম
লীলা আপুর আড্ডা প্রেম
খোজ নিলে আরো অনেক বন্ধুর প্রেম ভালবাসার ভিন্ন ভিন্ন রূপ জানা যাবে কিংবা বেরিয়ে আসতে পারে, কি পারে না বন্ধু?
ধন্যবাদ সবাইকে”

৪১৩জন ৪১৩জন
0 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ