হোস্টেল লাইফ মজার লাইফ

মেহেরী তাজ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪, বৃহস্পতিবার, ০৭:৩৩:১৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি, রম্য ২৭ মন্তব্য

হিমু যেমন বিভ্রান্ত মানুষ কে আরো বেশি বিভ্রান্ত করে দিয়ে মজা পায়, আজকাল আমারও এটা করতে চরম মজা লাগে।

যেমন আজ বেশ কটা বিভ্রান্তিকর ঘটনা ঘটিয়েছি। ঘটনাগুলো বলার আগে অনেক বড় রাইটারদের মত একটু ভূমিকা না করলেই নয়। আমি কিছুদিন হলো বেশকিছু নতুন শব্দ শিখেছি। যেমন, মাননীয় স্পিকার, পিলিগ লাগে, কেমনে কি ইটিসি। যাদের লেখা পড়ে শিখেছি তাদের কে অনেক ধন্যবাদ। তাই বলে পরবর্তীতে এসে বললে চলবে না এগুলা আমার শব্দ / বাক্য। কারন এই বাক্য গুলাই এবার আমি ব্যবহার করতে যাচ্ছি।

ঘটনা নং ১-
ক্যাম্পাস থেকে ঘেমে নেয়ে এসেছি। রুমে এসে দেখি ইলেকট্রিসিটি নাই,তাই ট্যাপে পানি খুব অল্প আসছে। গোসল দেব,এক বালতি পানি আসতে প্রায় বিশ মিনিট লেগে গেলো। এক বড় আপু এসে বলল: তাজ আমি একটু পানি নেবো, তরকারি ধোব।
আমি: খুব স্বাভাবিক ভাবে  নেন আপু (যদিও মনটা খারপ হয়ে গেলো)
উনি: কই গেছিলা ঘুরতে ?
আমি: হ্যা ক্যাম্পাসে ঘুরতে গেছিলাম।
উনি:কি করবে গোসল?
আমি:না গান শুনবো।
উনি: টয়লেট এ?
আমি: না বাথরুম এ, গোসল করতে করতে।
কিছুক্ষণ পর এসে দেখি আমার বালতির অনেক গুলা পানি নাই।আমি রাগ সামলাইতে ও পারছি না উনারে কিছু বলতে ও পারছি না। আর ঠিক তখনই ইউরেকার মত
আমি :আপু আপনি কি আমার বালতি থেকে পানি নিলেন?!?!
উনি: হ্যা কেন?
আমি : ডেটল খাইছেন কখনও?
উনি:তোমার আবার একটা করে খাপছাড়া কথা, ডেটল কি খাওয়ার জিনিস?!
আমি: না আমার বালতিতে ডেটল দেয়া ছিলো তো তাই।
উনি: (পুরাই মাননীয় স্পিকার হয়ে) তুমি আগে বলবা না!!!

ঘটনা নং ২
আমি মোবাইল এ জনি ডেপ এর কিছু ফটো দেখছি আর হে’ড ফোন কানে লাগায়ে গান শুনছি।
এক আপু এসে বললো :তাজ কি করো?!
আমি: জনির ছবি দেখি।
উনি: জনের ছবি আমি ও দেখবো।
আমি: দেখেন।
উনি: এটা তো সেই ছবি না। আর এই লোকটা তো বুড়া।
আমি:( পিলিগ লাগে আমারে কেও মাইরালা) উনার অল্প বয়সের ছবি দেখবেন? সে সময় আরও সুন্দর ছিলো !
উনি: দেখি দেখি।
আমি: ( মাইকেল জেকসন এর একটা ছবি দেখায়া বললাম ) দেখেন।
উনি: খুশি খুশি মুখ নিয়া এটাই ??
আমি:হ্যা।
উনি:এই লোক কি করে?
আমি:এই লোক গান গায়।
আর জনি ডেপ ছবি করে।

বি:দ্র: বালতিতে ডেটল দেওয়া ছিল না।

৬৪৬জন ৬৪৫জন
0 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ