এই লিখাটা যে কোনোদিন আমাকে লিখতে হবে তা বুঝতে পারি নাই। তারপরেও লিখলাম জানি অনেকে মানবেন অনেকে মানবেন না। কে মানবেন কে মানবেন না তা তাদের ব্যাক্তির বিষয়। আমার লিখার আমি লিখে যাই। কথা হচ্ছে যুদ্ধপরাধিদের বিচার প্রসঙ্গে। অনেকের ভিতর দেখছি এক ধরনের হতাশা এবং ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। আমি বলবো আমি উদ্বিগ্ন তবে হতাশ নই। বলবেন উদ্বিগ্ন কি কারণে? আমি বলবো ট্রাইব্যুনালের আগের রায়গুলা কেন কার্যকর করা হচ্ছে না ? এর ভিতর কি সমস্যা আছে?সাধারণ জনগন জানতে আগ্রহী কারণ একটি নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত প্রতিনিধির কাছে নিরঙ্কুশ ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে যুদ্ধপরাধিদের বিচার এবং রায় দ্রুত কার্যকর করে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত করে জাতীকে কলঙ্ক মোচন করতে। কিন্তু এখানে প্রসঙ্গে উল্লেখ থাকে যে সেই বিচার কাজ পরিচালনা করছেন বিজ্ঞ আদালতের আইনজীবী র। আমরা দেশের আইন এবং বিচার বিভাগের উপর সম্পূর্ণ আস্থা রাখতে চাই। কিন্তু যখন ই বিচার কার্যক্রমে ধীর গতি লক্ষ করি তখন ই অনেকের মনে সংশয় সৃষ্টি হয়। আমার কথা হচ্ছে আইন আইনের গতিতে চলবে তবে সেই গতিবেগ আসলে কতো সেইটা বুঝা যাচ্ছে না। প্রতিটা যুদ্ধপরাধিদের বয়স বাড়ছে এবং তারা যে সুযোগ সুবিধা সরকারের কাছে থেকে ভোগ করছে তা দেখে মনে হচ্ছে এরা জামাই আদরে রয়েছে। আমরা বিবেকবান জাতী যদি হয়ে থাকি অবশ্যই আমাদের অধিকার আছে সরকারের কাছে এই প্রশ্ন করার যেই বিচারের রায় হয়ে গিয়েছে সেই রায় কার্যকর করতে কতদিন অপেক্ষা করতে হবে? আইনের পরিমণ্ডলে থেকেই বিচার হউক এবং একটি সময় বেধে দেওয়া হউক এতো কার্যদিবসের মধ্যে বিচার হবে এতো কার্যদিবসের মধ্যে রায় কার্যকর অবশ্যই করতে হবে। আমি আওয়ামী লীগ সরকারের উপর আস্থাশীল , জননেত্রি শেখ হাসিনার সরকারের প্রতি আস্থাশীল বিধাই আমি হতাশ নই। তবে এইটুকু বলবো বিচার প্রক্রিয়া কেমন জানি স্থিমিত হয়ে পড়েছে। এই সিকে সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমি এও জানি সরকারের উপর বিভিন্ন মহলের চাপ আছে এই বিচার সংক্রান্ত ব্যাপারে। তথাপিও আমি বলবো এই বিচার করার ক্ষমতা এবং রায় কার্যকরের মাধ্যমে জাতীর কলঙ্ক মোচনের ক্ষমতা একমাত্র আওয়ামী লীগ সরকার তথা জননেত্রি শেখ হাসিনার দ্বারাই সম্ভব। আমরা আপনার সরকারের উপর আস্থা রেখে বলতে চাই যুদ্ধপরাধিদের বিচারের রায় দ্রুত কার্যকর করে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে পাওয়া স্বাধীন বাংলাদেশ কলঙ্কমুক্ত হউক এই আশা আমরা করতেই পারি। অতএব লেট করলে দেরী হইয়া যাইব।

জয় বাঙলা। জয়#বঙ্গবন্ধু

৪০০জন ৪০০জন
0 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ