কাচ নীরবতার শেষে

বনলতা সেন ৮ ডিসেম্বর ২০১৪, সোমবার, ১১:৩৮:৪০পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৯ মন্তব্য

গনগনে ধারালো কাচ নীরবতায় কে ডাকে দূর থেকে দূরে থেকে ??
রাত-বিরাতে খনখনে ঝাঁঝালো গলায়,চোখে আয়না ফেলে ঠোঁটের আড়ালে ঝুলিয়ে পোয়াতি হাসির হাসি শেষের ওবেলায় অবেলায়।কে?কে?

শান-বাঁধানো হিম-শীতলতায় একা থেকে ক্রমএকাকিত্বের স্বাদ নিয়ে নাছরিনের দেশে বেশ ভালই আছি অগুনিতক সময়ের কাছাকাছি।

বনলতা সেন কে খুঁজতে খুঁজতে হয়রান হয়ে ভাবছি চাদের বুড়ির বাড়ীতে একটু জিরিয়ে নেব,জবুথুবু শীতের কামড়ে লাগাব চাঁদ-বুড়ির গরম লেপের জরিবুটির প্রলেপ।বুড়ির জন্য এনেছি তবক দেয়া পান।ফোকলা বুড়ি খুশিতে হবে হেসে কুটিকুটি।

ডেকে যাচ্ছি বুড়ির নিরুত্তর উত্তর পেয়েও।বিরক্ত আমি উঁকি দেই আলতো আলোয় চাদের বুড়ির শীত বিছানায়। ক্ষীণতম হাসির শব্দ যেন শুনতে পাই,আমার ডাকাডাকি ফিরে আসে আবারও শব্দহীনতায়।আমার সাথে রাত-ইয়ার্কি!রেগে গিয়ে কাছে যাই,তুলে ফেলি শীত-কাঁথা।

একি!একি!
বুড়ির গলা জড়িয়ে বনলতা সেনের হিহি ধ্বনি।
====================================================================
সই-সতীনের এত-শত জ্বালায় মরেও শান্তি নেই।

৫৯০জন ৫৯০জন
0 Shares

৩৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ