একি ভুল না অপরাধ

হালিমা আক্তার ২৭ জুন ২০২৩, মঙ্গলবার, ১২:২৮:১৭পূর্বাহ্ন সমসাময়িক ৮ মন্তব্য

দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে সংশয় অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। ভুল রিপোর্ট, ভুল ব্যবস্থাপত্র। এ এক সন্দিহান অবস্থা। আজ থেকে প্রায় ১৭/১৮ বছর আগে আমার এক সহকর্মীর ক্যান্সার হয়েছে বলা হয়। পরিবার উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। সকলের পরামর্শে দ্রুত ভারত যান চিকিৎসার জন্য। একটি অপারেশন করে উনি সুস্থ হয়ে ফিরে আসেন। সেখানের রিপোর্টে ক্যান্সারের কোন অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। আল্লাহর রহমতে তিনি এখনো ভালো আছেন। আর এ কারণেই প্রতি বছর দেশ থেকে বহু লোক প্রতিবেশী রাষ্ট্রে যাচ্ছেন চিকিৎসা সেবা পাওয়ার জন্য।

গত ৯ জুন ঢাকার সেন্ট্রাল হাসপাতালের ঘটনা চিকিৎসা সেবার ভয়াবহ রূপ প্রকাশ পায়। মাহবুবা রহমান আঁখি প্রসব বেদনা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হোন। চোখে ছিল নতুন অতিথি আসার সোনালী স্বপ্ন। সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে যায় এক শ্রেণির ডাক্তারের অসাধুপনায়। যে ডাক্তার দেশে নাই। তার নামে রোগী ভর্তি করা হয়। এবং যারা এর সাথে জড়িত ছিলেন সেই ডাক্তারদের অদক্ষতার ফলে নবজাতকের মৃত্যু হয়। এবং সিজার করতে যেয়ে রোগীর মলদ্বার ও মূত্রনালী কেটে ফেলেন। ভাবা যায় কী ভীষণ কঠিন অবস্থা। এর ফলে রোগীর অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে। ১৮ জুন দুপুর ১:৩০ মিনিটে মাহবুবা রহমান আঁখি মৃত্যু বরণ করেন। একই সাথে দুইটি হত্যা।

এর আগেও দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে রোগীর ভুল চিকিৎসার অভিযোগ রয়েছে। এ ক্ষেত্রে রোগীরা অভিযোগ করেন। এর বাইরে তাদের আর কিছু করার থাকে না। কিন্তু গত ৯ জুন সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার নামে যে ঘটনা ঘটেছে। সেটা কোন ভুল নয় অপরাধ। ভুল হয় অজ্ঞাতসারে। যে ডাক্তার হাসপাতালে নাই, এমনকি সে দেশের বাইরে অবস্থান করছেন, তার নামে রোগী ভর্তি করা ইচ্ছাকৃত অপরাধ। এক্ষেত্রে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও দায় কোনভাবেই এড়াতে পারেন না। দুটি প্রাণের দায় কে নেবে।

ভুলের ক্ষমা আছে। ইচ্ছাকৃত অপরাধের কোন ক্ষমা হয় না। অপরাধীরা শাস্তি পাবে কি? নাহ, আবার কোন আঁখি নবজাতক সহ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়বে।

৩২১জন ২২১জন
0 Shares

৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ